বিকাল ০৪:১২ ; শুক্রবার ;  ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮  

শ্রদ্ধার অজানা অধ্যায়

প্রকাশিত:

আশিকুর রহমান চৌধুরী।।

‘এবিসিডি-২’ এর সাফল্যে হাঁফ ছেড়ে বাঁচলেন শ্রদ্ধা কাপুর। এখন আর তারকাখ্যাতি নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়তে হবে না তাকে। নাচেও দেখিয়েছেন প্রতিভা। তবে এ পর্যন্ত উঠে আসাটা অন্য আরও অনেকের মতো খুব একটা সহজ ছিল না তার পক্ষে। জেনে নেওয়া যাক তার কিছু অজানা অধ্যায়।

১. গানের পরিবার থেকে অভিনয়ে এসেছেন শ্রদ্ধা। লতা মুঙ্গেশকর তার আত্মীয় হন। তাইতো সফলতম ছবি ‘আশিকি-২’ তে তাকে লতার ভক্ত-গায়িকার চরিত্রেই দেখা গেছে।

২. ‘তিন পাত্তি’ ছবিতে তেমন পাত্তা না পেলেও এরপর আরও অনেক সুযোগ আসে হাতে। কিন্তু ফসকে যায় অনেকগুলোই। যার মধ্যে আছে বানসালির ‘মাই ফ্রেন্ড পিন্টো’। এ ছবিতে সুযোগ পেয়েও পরে কালকি কোচিনের কাছে হার মানতে হয় শ্রদ্ধাকে। ‘আশিকি-২’ এর পর বানসালি যখন আবারও তাকে ‘গাব্বার ইজ ব্যাক’-এর জন্য ডাক দেন, তখন তিনি ওই ছবিতে সাইন করেও ফিরিয়ে নেন নিজেকে। প্রতিশোধটাও ঠিক যুৎসই হয় না সেবার। এরপরই তাকে ছবিতে নিতে চান আদিত্য চোপড়া। যশরাজের ব্যানারে ‘আওরঙ্গজেব’ ছবিতে সব ঠিক থাকলেও বিকিনি পরতে হবে দেখে সরাসরি ‘না’ করে দেন শ্রদ্ধা।

৩. বাবা শক্তি কাপুর ও মা শিভাঙ্গি চেয়েছিলেন মেয়ে বেশিদূর পড়াশোনা করুক। তা না করে অভিনয়ের পেছনেই ছুটেছেন।

৪. খুব আগ্রহের সঙ্গেই করন জোহরের ‘গোরি তেরে পেয়ার ম্যায়’ ও ‘উংলি’ ছবিতে বিশেষ ভূমিকায় এসেছিলেন শ্রদ্ধা। আশা ছিল মূল চরিত্র পাবেনে। তবে তিনি সম্ভবত ভুলে গিয়েছিলেন ক্যাটরিনার ‘চিকনি চামেলি’র ঘটনা। জোহরদের সিনেমায় বিশেষ চরিত্র মানেই নায়িকা হওয়ার সিঁড়ি নয়!

৫. ‘এবিসিডি-২’ তে নাচের মুদ্রা রপ্ত করতে গিয়ে বার বার আঘাত পেয়েছিলেন শ্রদ্ধা। তবে দমে যাননি। বরুণ ধাওয়ানের সঙ্গে তাল মিলিয়েই ছেড়েছেন। কাজের বেলায় সচরাচর ‘না’ বলেন না শ্রদ্ধা কাপুর।

‘এবিসিডি-২’ তে শ্রদ্ধার নাচ-গান দেখতে ক্লিক করুন:

/এমএম/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।