রাত ১০:২৬ ; রবিবার ;  ২০ অক্টোবর, ২০১৯  

জামায়াতের ইফতারে বক্তব্য দেননি খালেদা

প্রকাশিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট।।

আজ বৃহস্পতিবার জামায়াতে ইসলামী আয়োজিত ইফতার-মাহফিলে যোগ দিলেও বক্তব্য দেননি বিএনপি চেয়ারপারসন। জামায়াতসহ ২০ দলীয় নেতাদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় এবং ইফতার সেরেই বিদায় নেন খালেদা জিয়া।

হোটেল সোনারগাঁওয়ে অনুষ্ঠিত জামায়াতের ইফতারে অংশ নেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য এমকে আনোয়ার, নজরুল ইসলাম খান, আলতাফ হোসেন চৌধুরী, বিএনপি মহিলা দলের সেক্রেটারি শিরিন আখতার, বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সেক্রেটারি ড. আসাদুজ্জামান রিপন, জাতীয়তাবাদী যুবদলের সভাপতি অ্যাড. মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সুপ্রিমকোর্ট বারের সেক্রেটারি ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন।

সভাপতির বক্তব্যে জামায়াতের নায়েবে আমির অধ্যাপক মুজিবুর রহমান অভিযোগ করেন, জনপ্রিয়তা হারিয়ে সরকার জোর-জবরদস্তি করে ক্ষমতায় টিকে থাকার পথ অবলম্বন করেছে। অনুগত মিডিয়ার মাধ্যমে জামায়াত সম্পর্কে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করে পরিবেশ ঘোলাটে করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে সরকার।

২০ দলের নেতারা অংশ নিলেও ইফতার মাহফিলটি এককথায় জামায়াত-শিবিরের নেতাদের মিলনমেলা হয়ে উঠেছিল। কেন্দ্রীয় মজলিসে শুরার সদস্য প্রকৌশলী গোলাম মোস্তফা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, সর্বনিম্ন জেলা আমিরও এসেছেন ইফতারে। এছাড়া কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ, কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদের বেশিরভাগ সদস্য উপস্থিত হয়েছেন।

জানা গেছে, কেন্দ্রীয় মজলিসে শুরার ১৬৫ সদস্যের মধ্যে প্রায় বেশিরভাগ অংশ নিয়েছেন ইফতারে। এছাড়া এসেছেন প্রায় ৩০-৩৫ জন জেলা-আমির।

অংশগ্রহণকারী নেতাকর্মীদের মধ্যে উল্লেখযোগ্যরা হলেন- মহানগর নায়েবে আমির ও কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য মাওলানা আবদুল হালিম, কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ডা. রিদওয়ানুল্লাহ শাহেদি, অ্যাড. নজরুল ইসলাম, অ্যাড. জসিম উদ্দিন সরকার খন্দকার মশিউল আলম, কেন্দ্রীয় মজলিসে শুরার সদস্য সেলিম উদ্দিন, মঞ্জুরুল ইসলাম ভূইয়া, মোবারক হোসেন, আবদুর রব, রফিকুন্নবী, গোলাম মোস্তফা। উপস্থিত ছিলেন ছাত্রশিবিরের সাবেক সভাপতি মুজিবুর রহমান মঞ্জু ও জাহিদুর রহমান। জামায়াতের ফরিদপুর অঞ্চলের আঞ্চলিক পরিচালক মো. দেলোয়ার হোসাইন, মুন্সীগঞ্জ জেলা জামায়াতের আমির অধ্যাপক এবিএম ফজলুল করিম, বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের সেক্রেটারি অধ্যাপক হারুন খানসহ আরও অনেকে।

এছাড়া জামায়াতের কারাবন্দি নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর ছেলে শামীম সাঈদী, যুদ্ধাপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মুহাম্মাদ মুজাহিদের ছেলে আলী আহমাদ তাহকীক ও আলী আহসান মাবরুর, যুদ্ধাপরাধের দায়ে ফাঁসি হওয়া সাবেক সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল আবদুল কাদের মোল্লার ছেলে হাসান জামিল এবং কামারুজ্জামানের ছেলে হাসান ইকবাল ওয়ামী ইফতার মাহফিলে অংশ নেন।

২০ দলীয় জোটের নেতাদের মধ্যে ইফতারে অংশ নেন ড. অলি আহমদ বীর বিক্রম, শফিউল আলম প্রধান, মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মো. ইব্রাহিম বীর প্রতীক, ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, অ্যাড. মো. আজহারুল ইসলাম, জেবেল রহমান গণি, এএইচএম কামরুজ্জামান, সাঈদ আহমেদ, মাওলানা মুহাম্মদ ইসহাক, হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা আবদুর রহমান চৌধুরী ও সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী, মাওলানা আবু তাহের জিহাদী।

পেশাজীবীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- কবি আল মাহমুদ, আবদুল হাই শিকদার, আবুল আসাদ, রুহুল আমীন গাজী, সাদেক খান, রেদওয়ান সিদ্দিকী, নূরুল আমীন, মাহফুজ উল্লাহ, ড. অধ্যাপক মাহবুব উল্লাহ, সৈয়দ আবদাল আহমদ, শওকত মাহমুদ, আবদুশ শহীদ, জাহাঙ্গীর আলম প্রধান প্রমুখ।

 

/এসটিএস/এফএ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।