দুপুর ০১:৫৬ ; মঙ্গলবার ;  ১৯ নভেম্বর, ২০১৯  

পরিণীতির অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের ওপর হামলা

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

বিনোদন প্রতিবেদক।।
একের পর এক বিদেশি তারকাদের এনে বাণিজ্যিক অনুষ্ঠান করে আসছে বিভিন্ন আয়োজক প্রতিষ্ঠান। সাম্প্রতিক ও চলতি বছরের অনুষ্ঠানগুলোর প্রতিটিতেই ছিল দর্শক-শ্রোতা-সংবাদকর্মীদের অসন্তোষ। যার চূড়ান্ত রূপ নিল মঙ্গলবার গ্রিন অ্যাপল কমিউনিকেশনস নামের নামসর্বস্ব একটি প্রতিষ্ঠানের আয়োজনের মধ্য দিয়ে।

একটি ফ্যাশন শো'র জন্য মুম্বাই থেকে উড়িয়ে নিয়ে আনা বলিউড অভিনেত্রী পরিণীতির সামনেই সাংবাদিকদের ওপর লাঠিচার্জ করা হয়েছে এদিন সন্ধ্যায়। রক্তাক্ত করা হয়েছে অনলাইন পোর্টাল বিডিনিউজের সংবাদকর্মী জয়ন্ত সাহা, তানজিল আহমেদ জনি ও অপর সাংবাদিক রেজাউল করিমকে। তাদের হামলার হাত থেকে বাদ যায়নি দেশের শীর্ষস্থানীয় প্রিন্ট ও অনলাইন মিডিয়ার উপস্থিত সাংবাদিকরা।  এসময় হামলার শিকার হন প্রথম আলো, বাংলামেইল, বাংলা ট্রিবিউনসহ বেশ কিছু গণমাধ্যমের সংবাদকর্মীরা। হামলার হাত থেকে বাঁচাতে ধস্তাধস্তিতে আহত হন বাংলা ট্রিবিউনের ফটোসাংবাদিক সাজ্জাদ হোসেন।

ঘটনার সূত্রপাত অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে। দিনভর সাংবাদিকদের সংবাদ সম্মেলনের কথা বলা হলেও ফ্যাশন শো'র শেষে তা আয়োজনের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়। সংবাদ সম্মেলন শুরুর দিকে কিছু টিভি মিডিয়ার সাংবাদিক প্রবেশ করলেও আটকে দেওয়া হয় প্রিন্ট, অনলাইন ও কয়েকটি টিভি চ্যানেলের সংবাদকর্মীদের।

উপস্থিত এক সাংবাদিক ঘটনার বিবরণে বলেন, 'সংবাদ সম্মেলনের জন্য সাংবাদিকরা ভেতরে ঢুকতে চাইলে প্রথমে বাধা দেওয়া হয়। কারণ চানতে চাইলে তর্ক শুরু করে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা বিশেষ বাহিনী। এর পর পেছন থেকে গ্রিন অ্যাপল কমিউনিকেশনস-এর এক কর্মকর্তা বলেন, কাউকে ঢুকতে দেওয়া হবে না। তার কাছে কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, টিভি ক্যামেরা ও কয়েকজন ফটোগ্রাফার ভেতরে নিয়েছি। আর নেওয়া সম্ভব নয়, কারণ প্রেস কনফারেন্সের জন্য বড় জায়গায় আয়োজন করা সম্ভব হয়নি।'

হামলা সম্পর্কে ওই সাংবাদিক বলেন, 'সে কর্মকর্তাকেই যখন প্রশ্ন করা হয়, বিকালে দুইবার তাহলে কেন সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের ডেকে এনে বাতিল করা হলো? পরে কেনইবা এমন জায়গার ব্যবস্থা করা হচ্ছে, যেখানে কথা বলার সুযোগ নেই? প্রতিষ্ঠানের সে কর্মকর্তা বলেন, বেশি কথা বললে লাঠিচার্জ করা হবে। এর পরপরই বিডিনিউজের জয়ন্ত সাহার জামার কলার ধরে সামনে টেনে নিয়ে যাওয়া হয়। লাঠি দিয়ে তার ঘাড়ে ও পায়ে আঘাত করতে থাকে নিরাপত্তাকর্মীরা। এসময় তাকে রক্ষা করতে এগিয়ে আসেন অন্য সংবাদকর্মীরা। তখন কেউ যেন ছবি তুলতে না পারে এ জন্য প্রথমে ক্যামেরায় আঘাত করা হয়। পরে ক্যামেরা কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করে হামলাকারীরা।'

 জানা গেছে, সাংবাদিকদের ওপর হামলা চালাতে নির্দেশ দেন আয়োজক প্রতিষ্ঠানের রাকিব নামে একজন।

এভাবে কিছুক্ষণ ধস্তাধস্তি চলতে থাকে। প্রত্যক্ষদর্শী অন্য সাংবাদিক জানান, এসময় দূর থেকে গ্রিন অ্যাপল কমিউনিকেশনসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সানজিদা লুনা বিষয়টি দেখেন। কিন্তু নিরাপত্তারক্ষীদের থামানোর জন্য সে মুহূর্তে কোনও উদ্যোগ তিনি নেননি।
ঘটনার সময় উপস্থিত ছিলেন প্রথম আলো, ডেইলি স্টার, বাংলা ট্রিবিউন, বিডিনিউজ, বাংলানিউজ, বাংলামেইল, প্রিয় ডট কম, এশিয়ান টিভি, যমুনা টিভি, বাংলাভিশন, একাত্তর টিভি ও ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভির একাধিক সংবাদকর্মী। ঘটনা চলাকালীন সামনে দিয়েই পরিণীতি চোপড়া অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করেন।

এদিকে আহত বিডিনিউজের দুই সাংবাদিকের মধ্যে জয়ন্ত বেশ যখম হয়েছেন। আঘাত পাওয়ায় তার পায়ের বেশ কিছু অংশ  দিয়ে রক্তপাত হয়ে দেখা গেছে। জয়ন্ত জানান, তারা বিষয়টি নিয়ে জিডি করবেন। এরপর অফিসিয়াল আলোচনার মাধ্যমে মামলার প্রস্তুতিও নিতে পারেন বলে জানান।

এদিকে ঘটনাস্থলেই গ্রিন অ্যাপল কমিউনিকেশনসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সানজিদা লুনার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাকে আর পাওয়া যায়নি। তার মুঠোফোনে ফোন ও মেসেজ দিয়ে যোগাযোগ করা হলেও তিনি কোনও সাড়া দেননি।

Caption

 

/এম/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।