রাত ০৯:৪২ ; মঙ্গলবার ;  ২৫ জুন, ২০১৯  

এবার ঢাবিতে মাস্টার্স অব প্রফেশনাল ফাইন্যান্স

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট॥

পেশাগত প্রতিযোগিতায় টিকে থাকা বা স্বচ্ছ জ্ঞান আহরণের আগ্রহসহ নানা কারণে বাড়ছে ভিন্ন ভিন্ন অঙ্গনে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জনের প্রবণতা। এ অবস্থায় চাকরির বাজারে চাহিদা ও শিক্ষার্থীদের আগ্রহের কথা মাথায় রেখে ঢাবিতে চালু হলো মাস্টার্স অব প্রফেশনাল ফাইন্যান্স প্রোগাম। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) এবং গ্লোবাল প্রফেশনাল অ্যাকাউন্টিং সংগঠন অ্যাসেসিয়েশন অব চার্টার্ড সার্টিফায়েড অ্যাকাউন্ট্যান্টস (এসিসিএ)’র যৌথ উদ্যোগে এটি পরিচালিত হবে।

এ লক্ষ্যে বুধবার ঢাবির বাণিজ্য অনুষদ ও এসিসিএ’র মধ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্য অনুষদের ডিন প্রফেসর শিবলী রুবাইয়াৎ উল ইসলাম, ফাইন্যান্স বিভাগের চেয়ারম্যান ড. এম মাসুদ রাহমান, এসিসিএ’র আঞ্চলিক প্রধান স্টুয়ার্ট ডানলপ এবং এসিসিএ’র বাংলাদেশ প্রধান মহুয়া রশিদ।

উপস্থিত বিভাগীয় প্রধানরা জানান, মাস্টার্স অব প্রফেশনাল ফাইন্যান্স- এর মেয়াদকাল হবে দুই বছর। তবে শুধু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাই নয়, এতে অংশ নিতে পারবেন এসিসিএ’সহ যেকোনও বিভাগের শিক্ষার্থীরা। সেজন্য অর্নাস সম্পন্ন করা ছাড়াও থাকতে হবে যেকোনও অঙ্গনে প্রাতিষ্ঠানিক কর্ম অভিজ্ঞতা।

বিশ্বের নানা বিশ্ববিদ্যালয়ে এই প্রোগামটি পরিচিত হলেও বাংলাদেশে প্রফেশনাল ফাইন্যান্স প্রোগ্রামটি নতুন। আর তাই শুধু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নয়, এসিসিএ’র শিক্ষার্থীরাও পাবেন শর্তসাপেক্ষে বিষয়টিতে পড়ালেখার সুযোগ। এ লক্ষ্যে ঢাবি শিক্ষকদের আলাদাভাবে প্রশিক্ষণ দেবেন এসিসিএর আর্ন্তজাতিক মানের প্রশিক্ষকরা। ফলে বিভিন্ন অঙ্গনের শিক্ষার্থীরা পাবেন বাণিজ্যিক বিষয়ে জ্ঞান এবং বাস্তবিক ব্যবসায়িক সমস্যাগুলো সমাধানে সম্মুখ ধারণাসহ বিশ্ব বাণিজ্য সম্পর্কে একটি বিস্তারিত ধারণা।

এই ডিগ্রিধারীরা পেশাগত জীবনে সর্বোচ্চ সুবিধা পাবেন বলেও মন্তব্য করেন অনুষ্ঠানের বক্তারা।

আগ্রহী শিক্ষার্থীরা আগামী ১৩ জুন পর্যন্ত বাণিজ্য অনুষদ থেকে ভর্তি ফরম সংগ্রহ করতে পারবেন। তবে, যারা এসিসিএ’র সঙ্গে সরাসরি সম্পৃক্ত তাদের জন্য এ সুযোগ থাকছে আগামী ১৫ জুন পর্যন্ত।

/এআই/এমপি/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।