রাত ০৪:১৮ ; সোমবার ;  ১৮ নভেম্বর, ২০১৯  

২০১৯ সালে বিএনপি নামে কোনও দল থাকবে না: খাদ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট।।

২০১৯ সালে বিএনপি নামে কোনও দল থাকবে না বলে মন্তব্য করেছেন খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম। তিনি বলেন, বিএনপি খণ্ডবিখণ্ড হয়ে মুসলিম লীগের অবস্থায় পৌঁছে যাবে। বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের হলরুমে বঙ্গমাতা পরিষদ আয়োজিত ‘জামায়াত-বিএনপির ষড়যন্ত্র ও জঙ্গিবাদের রাজনীতি প্রতিরোধে দেশবাসীর করণীয়’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি এমন মন্তব্য করেন।

খাদ্যমন্ত্রী  বলেন, খালেদা জিয়া ও তার দোসরদের বিরুদ্ধে যত কম কথা বলা যাবে, ততই ভালো। কারণ বিএনপির স্বজনপ্রীতি ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলায় ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ ও লে. জে. (অব.) মাহাবুবুর রহমানকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে দেখা করার সময় অনুপস্থিত রাখা হয়েছে।     

কামরুল বলেন, রাজনীতিতে দ্বিমত থাকবেই। সরকারি দল ও বিরোধী দল থাকবে। কিন্তু কেউ মুক্তিযুদ্ধের বিপক্ষে থাকবে না।সবাই রাজনীতি করবে, কিন্তু আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতাকারী কেউ থাকবে না।

খাদ্যমন্ত্রী  বলেন, ভারতের সঙ্গে বিএনপি বন্ধুত্ব করতে চায়, তাই বিএনপি নাকে খত দিয়ে জামায়াতের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করতে চায়।

২০১৮ সালের মধ্যে পদ্মা সেতু হবে দাবি করে খাদ্যমন্ত্রী  বলেন, ১৮ সালের মধ্যে আমাদের স্বপ্নের পদ্মা সেতু সম্পূর্ণরূপে তৈরি হয়ে যাবে।আর এটা একমাত্রই শেখ হাসিনার পক্ষে সম্ভব। যদিও জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এই সেতু নিয়ে আগেও ষড়যন্ত্র হয়েছে। সেই ষড়যন্ত্র বর্তমানেও অব্যাহত আছে।

মানবতাবিরোধীদের বিচার প্রসঙ্গে কামরুল বলেন, বিচার চলছে। কিছু রায়ও ইতোমধ্যে কার্যকর  করা হয়েছে। ভবিষ্যতেও তা অব্যাহত থাকবে। শেখ হাসিনা তার নির্বাচনে যেই কথা দিয়েছিলেন, তা পূরণ করেছেন।

জাতীয় প্রেসক্লাব প্রসঙ্গে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, দীর্ঘদিন যাবত জাতীয় প্রেসক্লাব স্বাধীনতাবিরোধীদের দখলে ছিল।তারা বিভিন্ন কূটকৌশল করে এই প্রেসক্লাব নিজেদের দখলে রেখে ছিল।আগামীতে একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে নির্বাচিত প্রতিনিধিরা এই প্রেসক্লাব পরিচালনা করবেন।

সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এম আনিছুর রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি শফিকুর রহমান, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমোদ হোসেন, আমরা মুক্তিযুদ্ধার সন্তান-এর সভাপতি মো. হুমায়ন কবীর প্রমুখ।

/এসআইএস/এমএনএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।